অন্তর্টান

এক শিশু দোলে তার মায়ের কোলে,
বাবা আদর করে তাকে নিল তুলে
স্নেহের ছোঁয়ার কাছে সে যে অসহায়,
আদরের উষ্ণ স্পর্শে তবুও বোঝে না হায়!
বাবা যাচ্ছে যুদ্ধে চলে।

মাঝরাতে মাঝে মাঝে
বাবা আসে তার কাছে
দেখে সে বাবাকে,
আর ভাবে-
বাবা চলে গেলে, মা বকুনি দিলে
সে নালিশ করবে কাকে?

ধীরে ধীরে যায় সময়,
বাবা তবু আসে না আর
অলিতে গলিতে খুঁজে চলে নিঃশব্দে,
প্রহর গুনে অপেক্ষার।

হঠাৎ যেন থাকতে পারে না, মাকে শুধায় ডেকে,
নাছোড় আবদার,  আজকেই সে
দেখতে যাবে বাবাকে।
মা আজ আর বলেনা কিছু
শুধু মুখে আঁচল টেনে,
একটু থেমে থেমে
ডুকরে উঠে কেঁদে।

দিন গেল,  মাস গেল
এল খুশির রেশ,
নিয়াজীর দল করল সমর্পণ
স্বাধীন হলো দেশ।

এই উৎসবে আজও খোকার মনে
বাবার হাহাকার
নীরবে বুকে টেনে মা বলে,
ওরে বাছা আমার,
বাবার জন্য তোর মনে এই যে লুকানো ব্যথা
আজকে তোকে বলব তার সকল জমানো কথা,
তোর বাবার এই লুকোচুরি,
কেন এই নিরবতা?
শত শত বাবার এই ত্যাগই আজ
আনলো স্বাধীনতা।।

কমেন্ট করুন
শিক্ষার্থী | পরিসংখ্যান বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

সেশনঃ ২০১৮-১৯

সাকিয়াতুল জান্নাত রুহী

সেশনঃ ২০১৮-১৯