পথের মায়া

ছোট এ জীবনে সব পথ হেঁটে দেখার সুযোগ কই!
শত পথের মাঝ থেকে মোটাদাগে কেবল
একটি পথই বেছে নিতে হয় আমাদের।
অন্য কোনো পথ যে আমায় আকর্ষণ করেনি, করছে না, তা নয়।
বরং জানি, যতই হেঁটে যাবো বেছে নেয়া পথটি ধরে,
না হাঁটা পথগুলোর প্রতি টান ততই প্রগাঢ় হবে!
মাঝে মাঝে হোঁচট খাবো,
তবুও ভালোবেসে ফেলা এই পথের মায়া
ছাড়তে না পেরে হয়তো হেঁটেই চলবো অবিরাম।

কিছুদূর এগিয়ে গিয়ে ক্লান্ত হয়ে
যখন কোন বটবৃক্ষের নিচে দাঁড়াবো
তখন আমার কানে হয়তো ভেসে আসবে
কোন পাখির ছানার কান্নার শব্দ।
উপরের দিকে তাকিয়ে হয়তো দেখবো-
মা পাখিটি তাঁর তৃষ্ণায়, অনাহারে
মুমূর্ষু হয়ে যাওয়া বাচ্চাগুলোর জন্য আর্তনাদ করছে-
আর আমি পাখিপ্রেমী হয়েও সেদিন হয়তো নিষ্ঠুর হয়ে উঠবো,
করুণ আর্তনাদ অগ্রাহ্য করে, সব মায়ার বাঁধন ছিন্ন করেও
হয়তো ফের হাঁটতে শুরু করবো নব উদ্যমে,
কোন এক ছায়াশীতল উর্বর জনপদে
পৌঁছানোর নিষ্ঠুর নির্লজ্জ তাড়নায়! 

তারপর চলতে চলতে হঠাৎ
এক গোধূলি লগ্নে যদি দেখি সামনে আর কোনো পথ নেই? 
যদি দেখি আমি এতদিন যেই জনপদের লোভে হেঁটে এসেছি অবিরাম,
সেই জনপদ বিলীন হয়ে রূপ নিয়েছে এক ঊষর মরুভূমিতে! 

না আমি আর পিছনে ফিরে যাবো না,
হয়তো যেতে পারবও না। 
পাষাণের মত সব পথ ফেলে
এই পথকে যখন ভালোবেসে এতদূর হেঁটে এসেছি,
তখন আমি আর পিছনে ফিরে যেতে পারিনা।
এই পথ যদি আমাকে ভালোবেসে জনপদের বদলে
মরুভূমিতেই এনে দাঁড় করায়
তবে সেই মরুভূমিই হোক আমার শেষ ঠিকানা!

কমেন্ট করুন

হাসিব আল ফারাজি

সেশন:- ২০১৩-১৪