মালতি (কাঠ মালতি)

কাঠ মালতি টগর গোত্রের একটি ফুল। Apocynaceae পরিবারের অন্তর্ভুক্ত মালতি ফুলের বৈজ্ঞানিক নাম Tabernaemontana Pandacaqui । ইংরেজিতে Banana bush বলে পরিচিত এই গাছটি Apacynaceae পরিবারের একটি উদ্ভিদ। বাংলাদেশ, ভারত সহ দক্ষিণ এশিয়ার বিভিন্ন দেশে, চীন, তাইওয়ান, থাইল্যান্ড, মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া, ফিলিপাইন, পাপুয়া নিউগিনি, অস্ট্রেলিয়া সহ অনেক স্থানে মালতি ফুলের দেখা পাওয়া যায়। সাধারণত শুষ্ক অঞ্চলে এর দেখা মেলে।

মালতি গাছ ১৪ মিটার (৪৬ ফুট) পর্যন্ত উঁচু হয়। গাছ শক্ত লতা জাতীয়। বড় গাছের গোড়ায় লাগালে সেই গাছ বেয়ে উপরে উঠে যায়। তবে বাগানে মালতি গাছ ছেঁটে ঝোপের আকৃতি দিয়ে রাখা যায়। মালতি ফুলে পাঁচটি পাপড়ি থাকে। ফুলের রং সাদা বা ঘিয়ে। এর ফল বা বীজাধার কমলা, লাল বা হলুদ রঙের হয়। বীজাধারে জোড়া বীজকোষ থাকে যার প্রতিটির ব্যাস প্রায় ৭  সেন্টিমিটার (২.৮ ইঞ্চি)।

বাংলা গানে কবিতায় মালতির অবাধ বিচরণ ।

“কে নিবি ফুল

কে নিবি ফুল

টগর যূথী

বেলা মালতি, …’’

অথবা

“ওই মালতি লতা দোলে,

পিয়াল তরুর কোলে…”

গান গুলি কম বেশি আমাদের সবারই জানা।

বাংলাদেশের আবহাওয়ায় গ্রীষ্মের শেষ থেকে শুরু করে পুরো বর্ষা মালতি ফুল ফোটে। ফুল সুগন্ধি। গাছ ভরে ফুল ফুটলে অপূর্ব সুন্দর লাগে, চারিদিক সুগন্ধে ভরে যায়।

তথ্যসূত্রঃ উইকিপেডিয়া

ছবিঃ নাজমা সুলতানা

কমেন্ট করুন

প্রাক্তন শিক্ষার্থী

পরিসংখ্যান বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

সেশন: ১৯৯২ - ১৯৯৩

জাহিদা গুলশান

প্রাক্তন শিক্ষার্থী পরিসংখ্যান বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সেশন: ১৯৯২ - ১৯৯৩

0