fbpx

নবান্ন-বুড়ির ইতিকথা

‘বুড়িপুড়ানো দিয়ে শেষ, ধান কাটা আর নবান্ন দিয়ে শুরু’- কার্তিক আর অগ্রহায়ণের হাতে হাত ধরে প্রস্থান আর আগমনের এই আঞ্চলিকতার

বিস্তারিত পড়ুন

দৃষ্টি

সে যে উঁকি মারে, একা একাদেয়ালের ঐ বাঁকেহলুদের রঙে রঞ্জিত হয়েকার পানে চেয়ে থাকে!কাজলের আঁচে টানাটানা চোখেকার পথ ছুয়ে চলে!হাসির

বিস্তারিত পড়ুন

প্রেমের আবর্তন

প্রেম এসেছিলোতোমার ঐ কালো মুখের স্নিগ্ধ চোখেএসেছিলোশুকনো খেজুরের ন্যায় তোমার অধরেএসেছিলোউত্তপ্ত রোদে নির্লিপ্ত সলজ্জ চাহনিতেএসেছিলোতোমার মাথার জটলা ধরা ঐ কুন্তলেএসেছিলোভৈরবের

বিস্তারিত পড়ুন

বিশ্বাসের সুলুক

ঐ নতুন ঝাড়বাতিতে যখন সন্ধ্যা নামেনৈঋত কোণে তখন কুয়াশার চড়ুইভাতি।দৃষ্টিতে ঝাপসা হয়ে আসা ঐ ছোট্ট সবুজ বিন্দু,বিশ্বাসের প্রতি কিণাঙ্কে চলেছে

বিস্তারিত পড়ুন

যাযাবরের কথন

এক পশলা বৃষ্টি শেষে মাঘের শীত নামে জ্যৈষ্ঠের ভরদুপুরেবুনোলতার শীতল ছুরিতে দগ্ধ হয় উত্তপ্ত শরীরপিচঢালা রাস্তাগুলো নবযৌবনের হাওয়ায় ঝলসে ওঠে

বিস্তারিত পড়ুন

উদ্বায়ী আশা

প্রদীপগুলোর কাঁপছে শিখা,বাইরে আজ ডেকেছে বানআশার পাকে পেঁচিয়ে থাকাসলতে গুলোর ঝরছে প্রাণ।বাতাস পানে উড়ছে দিশা,শেষ তেলের ঐ অগ্নিশিখাতেল ফুরুলে নিভবে

বিস্তারিত পড়ুন

বৃন্তচ্যুত

রিক্ততার আঁচলে পেচিয়ে ওঠা সাফল্যবুভুক্ষু সত্ত্বায়ঘোর জাগে অতলে হারিয়ে যাওয়ারঅদৃষ্টে সুস্পষ্ট কিণাঙ্কের অস্ফুট চাহুনিতেঅবারিত কতই না কথকতা!সহিষ্ণুতার দিগন্ত ক্রমেই হচ্ছে

বিস্তারিত পড়ুন

অগ্নি স্নাত ভূমি

শব্দগুলো আটকে পড়েছে চিলেকোঠার অন্তপুরে;ধোয়াসা হয়ে ভেসে ওঠে আর্তচিৎকার।তীব্র দহনে জ্বলতে থাকা মাংসপিন্ডবদ্ধ ঘরের মাঝে শব্দহীন অশ্রুপুড়ে হয় ভস্ম!সদ্যজাতের চোখে

বিস্তারিত পড়ুন

রূপান্তর

কনা গুলো বৃষ্টিতে নামেএ শীতল ঝরনা ধারায়বৃষ্টির জলে মিশে একাকারভূগর্ভের এই সলীলধারায়।কখনো তারা শুকিয়ে ওঠেকাক ফাটা কোনো ভরদুপুরেপড়ন্ত কোনো বিকেলের

বিস্তারিত পড়ুন

তাপদহন

রৌদ্রদাহ চলছে জোরেঘামছে মানুষ, যাচ্ছে দুরে,পথের মাঝে ক্লান্ত হয়েছটফটিয়ে শ্রান্ত কায়ে।বাতাসগুলো ঘুপটি মেরেরয়েছে বসে আরাম করে,বেবাক মানুষ, যায় মরে যায়তাতে

বিস্তারিত পড়ুন

জ্যোৎস্না রাত্রির হাইওয়ে

অসিতবরণ সর্পের ন্যায় ঢেউ খেলানো পথের এক চিলতে ফালিপবনের রন্ধ্রে রন্ধ্রে আঘাত হেনে শো শো শব্দে বিদারিত করে ছুটছে গাড়ি।অংশুমালীর

বিস্তারিত পড়ুন

অপ্রাপ্তির পললভূমি

প্রাপ্তিযোগের ভাটার টানে চর জেগেছে মনেনিত্য নতুন পলল শাখা জমছে সেথায় থেমেনতুন পলি, নতুন বালি গড়েছে ঢিবির ঝাঁকিপুরাতনের দাবিগুলোই হয়নি

বিস্তারিত পড়ুন

উত্তরের শয়ান

নিস্তব্ধতা ভেদ করেই ছুটেছিলো আলোর পথেপ্রতিটা অঙ্গের সুস্পষ্ট প্রকাশে হেসেছিল বাবা-মার মুখতবু সাড়া দেয়নি সে!মস্তিষ্কের অসারতা নির্বিকার করেছিল ওকে;এই কোলাহলের

বিস্তারিত পড়ুন

নৈর্ব্যক্তিক প্রেম

প্রেম এসেছিলোতোমার ঐ কালো মুখের স্নিগ্ধ চোখেএসেছিলোশুকনো খেজুরের ন্যায় তোমার অধরেএসেছিলোউত্তপ্ত রোদে নির্লিপ্ত সলজ্জ চাহনিতেএসেছিলোতোমার মাথার জটলা ধরা ঐ কুন্তলেএসেছিলোভৈরবের

বিস্তারিত পড়ুন

স্মৃতির নাগরদোলা

রাতের কালশিরায়জীর্ণ বালিশের অদ্ভুত ঘ্রাণেনিউরনের জটে ফিরে পাই অতীত।যেথায়-শতচেষ্টায় জমে না বইয়ের স্তুপ,কিন্তু অনাদরে পড়ে রয়আলোআঁধারি খেলায় জটপাকানো সেই স্মৃতিমাঝে

বিস্তারিত পড়ুন

বর্ণ পূজারী

বর্ণ পূজারীবর্ণান্ধ প্রকৃতির কোলে চড়ছি আমরাসবুজ থেকে হলুদে হয় নিজের পত্র পল্লব দানআকাশের শুভ্রমেঘে যে কবি শব্দ খেলেকালো মেঘের চাদরে

বিস্তারিত পড়ুন

স্মৃতির নোনাজল

আরোহীতে এসেছিলে আমার এই কাননেতোমারি ধারায় আজ ভেসেছি খুব যতনেযাবে যদি যেতে চাও, ক্ষণে মোরে রেখে দাওশূন্য কানন ভরে রেখেছ

বিস্তারিত পড়ুন

কৃতঘ্নতার তোপধ্বনি

তোমায় ঘিরে প্রাণ ফোটে মাস্বস্তি মেলে তোমার তলেপ্রথম যখন প্রাণবায়ুতেতোমার ছোয়ায় আঁখি মেলে।আগমনের ভিন্নতাতেসাম্যতারই বার্তা হাতেদূর্ভেদ্য সেই জীবন কোষেজিতিয়ে তোমার

বিস্তারিত পড়ুন

অস্পৃশ্যতার_প্রেমকুঞ্জে

শহরের ব্যস্ত কোনো এক রাস্তার শেষ সীমানায় পড়ে থাকা একটা ডাস্টবিন। প্রতিদিন সিটি কর্পোরেশনের পরিচ্ছন্নতাকর্মী এসে ভাগাড়টা ঝাটিয়ে নিয়ে যায়।

বিস্তারিত পড়ুন

একটি গাছের আত্মপীড়ন

আমি থাকি হ্যাম্পশায়ারে। দ্বিপদ প্রাণীগুলো আমাকে “ওক” বলেই ডাকে। আমার জন্ম, বেড়ে ওঠাও এই বরফ আচ্ছাদিত এলাকায়। দ্বিপদ প্রাণীগুলো এগুলোকে

বিস্তারিত পড়ুন

পথিক সমাচার

কবিতাগুলো হারিয়ে গেছেদূর অচেনা শহর কোলেসন্ধ্যাগুলো নামছে যেথায়অস্ত রবি পড়ছে ঢোলেকুয়াশা ভেজা বিহগগুলোছুটে চলে শিশির নেড়েশীতগুলো খুব তীব্র বেগেচারদিক থেকে

বিস্তারিত পড়ুন

শয্যাশায়ীর শেষযাত্রা

নিস্তব্ধতা ভেদ করেই ছুটেছিলো আলোর পথে।প্রতিটা অঙ্গের সুস্পষ্ট প্রকাশে হেসেছিল বাবা-মার মুখতবু সাড়া দেয়নি সে!মস্তিষ্কের অসারতা নির্বিকার করেছিল ওকে;এই কোলাহলের

বিস্তারিত পড়ুন

বসন্তের রেণু

বাতাসটা বেশ দুরন্ত হয়ে উঠেছে থেকে থেকে। বসন্তের দুপুরে মধ্যগগনে সূর্য যখন প্রখর রোদে সবকিছুকে ঝলসে দিতে চায় তখন হালকা

বিস্তারিত পড়ুন

উপলব্ধি

আজকের সন্ধ্যাটা মনে হচ্ছেঅনেক কালের পুরানো হিসাব মিলাতে নেমেছে।বিদ্যুতের বিচ্ছেদে নিশ্ছিদ্র কালো চাদর দিয়েকে যেন মুড়ে দিয়েছে বিস্তীর্ন জনপদকে।পথিকহীন পিচ

বিস্তারিত পড়ুন

সুন্দরবনের ডাক

জীবনটা যখন কৃত্রিমতার আবরণে খুব বেশি আবৃত থাকে তখন চারপাশটাও তদ্রূপ মনে হতে শুরু করে। জীবনের রঙ্গমঞ্চের পাক্কা অভিনেতাদের সাথে

বিস্তারিত পড়ুন