সম্পাদকীয় – মুজিব সংখ্যা

প্রিয় পাঠক, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষ্যে প্যাপাইরাস পত্রিকার মার্চ ২০২০ সংখ্যাটি নির্ধারিত ১২ মার্চ (মাসের দ্বিতীয় বৃহস্পতিবার) এর পরিবর্তে ১৭ মার্চ ‘মুজিব সংখ্যা’ হিসেবে প্রকাশ করা হলো।

বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে নিচের সনেটটি লেখা। এটি একটি অ্যাক্রস্টিকও বটে – প্রত্যেক লাইনের প্রথম অক্ষর একত্র করলে দাঁড়ায় ‘মুজিব জাতির পিতা, মরেও অমর।’

মুক্তির উক্তিটি তাঁর বজ্রকণ্ঠে বেজে
জিয়নকাঠির ছোঁয়া দিলো জনপদে,
-দ্বীপে প্রদীপ তিনি, তাঁর দীপ্ত তেজে
জাতি এসে সাথি হলো দ্রোহের শপথে।
তিনি যোগ্য সঙ্গীতজ্ঞ – মুক্তিযুদ্ধ নামে
ক্তের অক্ষর সাজে তাঁর দক্ষ হাতে,
পিঞ্জর ভাঙ্গার ছন্দ মেলে সারগামে,
তানের সপ্তক দেখি বীরশ্রেষ্ঠ সাতে।

হান নেতাকে হত্যা – স্তব্ধ হলো জাতি!
রেহাই পায়নি শিশু, কী ঘৃণ্য পাতক!
রা বুঝি ভেবেছিলো নিভে গেছে বাতি –
ন্তরে আসীন তিনি, ভাগাড়ে ঘাতক।
নে নিত্য তাঁর কৃত্য স্বপ্নের বেসাতি,
চে যাবে তাঁর কাব্য নবীন জাতক।

[সনেটের সংজ্ঞা অনুযায়ী, কবিতাটিতে ১৪টি লাইন, প্রত্যেক লাইনে ১৪টি অক্ষর। অষ্টকে (প্রথম আট লাইনে) বঙ্গবন্ধুর অবদান স্মরণ করা হয়েছে। ষষ্টকে (শেষ ছয় লাইনে) তাঁর মৃত্যু ও অমরত্ব তুলে ধরা হয়েছে। অষ্টকে মিল রাখা হয়েছে এক-তিন (অর্থাৎ, প্রথম ও তৃতীয় লাইনে), দুই-চার, পাঁচ-সাত ও ছয়-আট। ষষ্টকে মিল রাখা হয়েছে নয়-এগারো-তেরো ও দশ-বারো-চৌদ্দ।]

কমেন্ট করুন

প্রাক্তন শিক্ষার্থী

পরিসংখ্যান বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

সেশনঃ ১৯৮৩ - ৮৪

জাফর আহমেদ খান

প্রাক্তন শিক্ষার্থীপরিসংখ্যান বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সেশনঃ ১৯৮৩ - ৮৪