সম্পাদকীয় জুলাই ২০১৯

পাঠক, আপনি নিশ্চয়ই ক্রিকেট বিশ্বকাপ নিয়ে মেতে আছেন।

ক্রিকেট আমারও পছন্দের খেলা। কিন্তু, এই খেলার একটা দিক আমার খুবই অপছন্দ – টসে জিতে সঠিক সিদ্ধান্ত নিলেই খেলায় জেতার সম্ভাবনা বেড়ে যায়। এবারের বিশ্বকাপের কথাই ধরুন। নকআউট পর্বের আগ পর্যন্ত ১৯টি ম্যাচে টসে জিতে ব্যাটিং নেয়া হয়েছে, এর মধ্যে ১৪টিতে টসজয়ী দল খেলায় জিতেছে (৭৩.৭%, যা ৫০% এর চেয়ে অনেক বেশি)। পরিসংখ্যানের ভাষায় এটা তাৎপর্যপূর্ণ (p-value ০.০৩)।

এই প্যারাটি পরিসংখ্যানের ছাত্র-শিক্ষকদের জন্য। এখানে দুই অর্থে ‘প্যারা’ শব্দটি ব্যবহার করা হয়েছে – প্যারা মানে প্যারাগ্রাফ (ইংলিশ শব্দ), আবার প্যারা মানে পেইন (নতুন প্রজন্মের শব্দ)। স্যাম্পল সাইজ যথেষ্ট বড় নয় বলে p-value বের করার জন্য binomial distribution ব্যবহার করা হয়েছে, normal distribution নয়। এখানে R কোড:

sum(dbinom(14:19, 19, 0.50))

অথবা 1 - pbinom(13, 19, 0.50) ব্যবহার করা যায়।

ক্রিকেটে টস জেতা যেহেতু গুরুত্বপূর্ণ, আমাদের ক্রিকেট দলের ক্যাপ্টেনকে (মাশরাফিকে নয়, তার রিটায়ারমেন্ট ওভারডিউ) টসে জেতার কলা-কৌশল শেখানো দরকার। ইতিহাস ঘেঁটে দেখুন, কোন কোন ক্যাপ্টেন এত বেশি টসে জিতেছেন যে, চিন্তার অবকাশ রয়েছে। তিনজন ক্যাপ্টেনের কথা উল্লেখ করছি। এদের মধ্যে একজন কখনও ওয়ান-ডে খেলেননি (আগে ওয়ান-ডে খেলা হতো না), আর একজন খেলেছেন মাত্র একটা (যেটাতে তিনি ক্যাপ্টেন ছিলেন না)। তাই এখানে শুধু টেস্ট ম্যাচের তথ্য দেয়া হলো।

টস জেতার দিক থেকে তৃতীয় হলেন পিটার মে (ইংল্যান্ড)। তিনি ৪১টি টেস্টের মধ্যে টসে জিতেছেন ২৬টিতে (৬৩.৪%, p-value ০.০৫৯)। এই ফলাফল পুরোপুরি significant না হলেও উল্লেখযোগ্য।

দ্বিতীয় অবস্থানে আছেন সনাথ জয়সুরিয়া (শ্রীলংকা)। তিনি ৩৮টি টেস্টের মধ্যে টসে জিতেছেন ২৫টিতে (৬৫.৮%, p-value ০.০৩৬)। সন্দেহ নেই, শ্রীলংকার ক্যাপ্টেন লংকা কাণ্ড ঘটিয়েছেন।

সেরা ক্যাপ্টেন হলেন গ্যারি সোবার্স (ওয়েস্ট ইন্ডিজ)। তিনি ৩৯টি টেস্টের মধ্যে ২৭টিতে টসে জিতেছেন (৬৯.২%, p-value ০.০১২)। ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান ভুডু (voodoo) বা তন্ত্রমন্ত্র ব্যবহৃত হয়নি বলতে চান?

তবে, আমাদের ক্যাপ্টেনকে শুধু টসের কলা-কৌশল শেখালেই হবে না। তিনি যাতে টসে জিতে প্রতিপক্ষের ইচ্ছে পূরণ না করেন, তার ব্যবস্থা নিতে হবে। টসে জিতলে কী নেয়া উচিত, ব্যাটিং না ফিল্ডিং, তা যেহেতু আমাদের দলের সাথে সংশ্লিষ্ট কেউ জানেন বলে মনে হয় না – সেক্ষেত্রে কী করণীয়? খেলার আগের দিন যে কোন পানের দোকানদারকে জিজ্ঞেস করলেই চলবে।

আর মাত্র দু’টো খেলা বাকি আছে এই বিশ্বকাপে, দু’টোই আপনার জন্য উপভোগ্য হোক।

কমেন্ট করুন

প্রাক্তন শিক্ষার্থী

পরিসংখ্যান বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

সেশনঃ ১৯৮৩ - ৮৪

জাফর আহমেদ খান

প্রাক্তন শিক্ষার্থীপরিসংখ্যান বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সেশনঃ ১৯৮৩ - ৮৪